২০ হাজার পরিবারকে ত্রান সহয়তা করেছে ইকবাল হোসেন অপু

২০ হাজার পরিবারকে ত্রান সহয়তা করেছে ইকবাল হোসেন অপু

শরীয়তপুর-১ আসনে সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু তার নির্বাচনী এলাকার জনগনকে একাগ্রতা এবং ধৈর্য্য ধারনের আহবান জানিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন, ব্যক্তিগতভাবে তিনি পালং-জাজিরা তে প্রায় ২০ হাজার পরিবারের মধ্যে ইতোমধ্যে ত্রান সহায়তা প্রদান করেছে। নিচে তার ফেসবুক পোস্ট তুলে ধরা হলো। প্রিয় পালং-জাজিরা(শরীয়তপুর-১) বাসী, আসসালামু আলাইকুম আশা করি মহান রাব্বুল আলামিন এর করুণায় আপনারা সবাই ভালো এবং সুস্থ আছেন।আপনারা জানেন কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের মহামারী এর কারণে পুরো পৃথিবী আজ বিপর্যস্ত।পুরো পৃথিবী মারিয়ে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে এবং ইতোমধ্যে প্রায় দুই হাজার মানুষ এ রোগে আক্রান্ত। প্রিয় পালং-জাজিরা(শরীয়তপুর-১) বাসী, এই অবস্থায় আমাদের সচেতনতা ই পারে আমাদেরকে এই ভাইরাসের ছোবল থেকে রক্ষা করতে।একটু অসচেতনতার কারণে আমাদের সকলকে চরম মূল্য দিতে হতে পারে। তাই নিজের জীবনের কথা চিন্তা করে,পরিবার পরিজনদের কথা চিন্তা করে,সরকারি নির্দেশনা মেনে সবাই যার যার নিজ বাসায় থাকুন।অযথা বিনা প্রয়োজনে বাসা থেকে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন।যদি বিশেষ কোন প্রয়োজনে বের হতে হয় তাহলে যথেস্ট দূরুত্ব বজায় রাখুন,মাস্ক ব্যবহার করুন।বার বার সাবান দিয়ে হাত ধৌত করুন অন্যথায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন। অযথা নাকে,মুখে,চোখে হাত দেয়া থেকে বিরত থাকুন।করোনা উপসর্গ দেখা দিলে দুশ্চিন্তাগ্রস্থ না হয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর হটলাইন ১৬২৬৩ নাম্বারে কল দিন। আপনাদের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই।বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সরকার যেকোন ধরণের দুর্যোগ মোকাবেলা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।আওয়ামীলীগ সরকার জনগণের সরকার, জনবান্ধব সরকার।করোনা পরবর্তী অর্থনৈতিক ক্ষতি মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে বাহাত্তর হাজার সাতশো পঞ্চাশ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে।কর্মবঞ্চিত গৃহবন্দী শ্রমজীবি মানুষ এবং নিম্নবিত্তদের জন্য সরকার ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করেছে।কৃষিখাতে ভতুর্কি দিয়েছে প্রায় নয় হাজার কোটি টাকা।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অতিরিক্ত পঞ্চাশ লক্ষ মানুষের জন্য রেশন কার্ড তৈরির জরুরি নির্দেশ প্রধান করেছেন। আপনাদের সেবায় ডাক্তার,নার্স,স্বাস্থ্যকর্মী, স্থানীয় প্রশাসন,পুলিশ,সেনাবাহিনী সর্বদা নিযুক্ত রয়েছে।স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সমন্বয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ হতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের ত্রাণ সামগ্রী ইতোমধ্যেই প্রকৃত দুস্থদের মাঝে সুষ্ঠুভাবে পৌছিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ত্রাণসামগ্রী নিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন।আপনাদের জনপ্রতিনিধি হিসেবে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে আমি আপনাদের অবস্থা সম্পর্কে সবসময় খোজখবর রাখছি।আমি ব্যক্তিগতভাবে পালং-জাজিরা তে প্রায় ২০ হাজার পরিবারের মধ্যে ইতোমধ্যে ত্রান সহায়তা প্রদান করেছি।বেসরকারী ভাবেও অনেকে ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছেন।স্থানীয় প্রশাসন,পুলিশ প্রশাসনকে সার্বিক দিকনির্দেশনা দেওয়ার মাধ্যমেও আপনাদের পাশে আছি।এছাড়াও আপনাদের যেকোন বিপদে আপদে পুর্বের মতো আপনাদের পাশে থাকার জন্য আমি ওয়াদাবদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্বে এবং মহান রাব্বুল আলামিন এর কৃপায় শীঘ্রই আমরা এ বিপদ থেকে মুক্তি পাবো ইনশাআল্লাহ। আমাদের সকলের ধৈর্য্য এবং একাগ্রতা আমাদের এ বিপদ থেকে মুক্তি দেবে ইনশাআল্লাহ। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। জয় জননেত্রী শেখ হাসিনা জয় হোক মানবতার

What's Your Reaction?

like
2
dislike
0
love
0
funny
0
angry
0
sad
0
wow
0