শরিয়তপুরে একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে নাঃ ইকবাল হোসেন অপু

শরিয়তপুরে একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে নাঃ ইকবাল হোসেন অপু

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রানঘাতি কেভিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বাংলাদেশও। গত ২৬ মার্চ থেকে গোটা দেশ লকডাউন করার ফলে অসহায় অবস্থায় দিনাতিপাত করছে নিন্ম আয়ের মানুষ। এ সময় মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু তার নির্বাচনি এলাকায় নানা ধরনের সচেতনেতামূলক কর্মসূচি ও মানবিক পদক্ষেপ গ্রহন করে প্রশংসিত হয়েছেন সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে। গত ১৮ মার্চ থেকেই সাংসদ অপুর নির্দেশে শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ, শরীয়তপুর পৗেরসভা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছা সেবকলীগ সহ দলীয় অঙ্গ-সহযোগি ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের নেতা কর্মীরা গোটা নির্বাচনি এলাকার পালং ও জাজিরা উপজেলার সর্বত্র করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদ থাকতে লিফলেট বিতরণ ও মাইকিং করে প্রচারনার কাজ শুরু করেন। ২২ মার্চের পর থেকে দলীয় নেতা-কর্মীরা হাজার হাজার মানুষকে সেনিটাইজার ও মুখোশ বিতরণ শুরু করেন। একই সাথে বিভিন্ন হাট বাজার ও পাড়ায় মহল্লায় তরল জীবানু নাশক ছিটানো কর্মসূচি শুরু করেন। দেশের কোথাও যখন করোনা দুর্যোগে স্বল্প আয়ের মানুষদের মধ্যে ত্রান বিতরণ শুরু হয়নি, ইকবাল হোসেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে ২৭ মার্চ থেকেই প্রথম তার নির্বাচনী এলাকার জাজিরা উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে আড়াই হাজার পরিবারের মধ্যে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় শরীয়তপুর সদর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকায় ২ হাজার ২ শত পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছেন। ইতিমধ্যে সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু ঘোষনা দিয়েছেন, তার নির্বাচনী এলাকার একটি মানুষও যেন অভূক্ত না থাকে। তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে কোন্ বাড়িতে, কোন্ লোকটি অনাহারে রয়েছেন তার বাড়িতে খাদ্য পৌছে দেয়া হচ্ছে। গতকাল বুধবার থেকে এই কর্মসূচিটি শুরু করায় ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন সাংসদ অপু ও আওয়ামীলীগ। এক বিশেষ সাক্ষাতে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু বলেন, আমি প্রথমেই মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশনা ও সরকারের স্বাস্থ্য বিধি পালন করার প্রতি সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করেছি। সারা দুনিয়ায় যেভাবে করোনা ভাইরাস গ্রাস করে ফেলছে, বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। আমরা আল্লাহর রহমত প্রার্থনা করছি। যে দেশের প্রধানমন্ত্রী ও সরকারপ্রধান আল্লাহ ওয়ালা ও পরহেজগার হন, সেই দেশের প্রতি আল্লাহ কোন মছিবত দিলেও তা থেকে আবার রক্ষা করেন। তিনি বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ফজরের নামাজ আদায় করে পবিত্র কোরআন শরীফ তেলাওয়াতের মাধ্যমে তার দিনের কর্মসূচি শুরু করেন। সুতরাং, বাংলাদেশের মানুষের প্রতি আল্লাহর রহমত অবশ্যই রয়েছে। ইকবাল হোসেন অপু আরো বলেন, আমি আমার নির্বাচনী এলাকার সব সংগঠনের সকল ইউনিটের নেতা-কর্মীদের বলে দিয়েছি, স্বল্প আয়ের দুস্থ্য ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে। একটি মানুষও যেন অভুক্ত না থাকে সে জন্য ফোন করে খোঁজ নিয়ে, যত দূর্গম এলাকায়ই হোক প্রত্যেকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিতে। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। আমাদের পক্ষ্য থেকে নিয়মিত ত্রান বিতরণ করা হচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকবে। সাংসদ অপু আরো বলেন, সরকারের কোষাগারে পর্যাপ্ত পরিমানের খাদ্য সামগ্রী রয়েছে, আতংকিত হবার কিছু নেই। শরিয়তপুরে একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে না ইনশাআল্লাহ্‌ । এ দুর্যোগ কালিন সময়ে সাহসী ভূমিকা পালনের জন্য তিনি জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সেনা বাহিনী ও সিভিল সার্জনের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি তার নির্বাচনী এলাকার জনসাধারনকে সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রত্যেককে ঘরে থাকার আহবান জানান। এই কঠিন দুর্যোগে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে তিনি সমাজের বিত্তবানদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন।

What's Your Reaction?

like
0
dislike
0
love
0
funny
0
angry
0
sad
0
wow
0